Dearness Allowance

Dearness Allowance: অঙ্কে ভুল মমতার, ‘১৩৫% ডিএ দিলেও বকেয়া ৮২%’, সামনে এলো হিসাব

রাজ্য সরকার যেভাবে অঙ্ক করছে সেই হিসাবে বকেয়া ডিএ ৮২ শতাংশ, দাবি আনন্দোলনকারীদের।

Dearness Allowance: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্প্রতি রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের জন্য ডিএ বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করেছেন। এর পর প্রতিমন্ত্রী মানস ভূঁইয়া সংগ্রামী যৌথ মঞ্চকে আক্রমণ করেন। আর এর জবাবে ডিএ আন্দোলনকারীরা দাবি করেছেন, রাজ্য সরকারের বকেয়া ডিএ এখন ৮২ শতাংশ।

কয়েকদিন আগে ডিএ বাড়ানোর কথা ঘোষণা করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় বলেন, ‘আমরা অলরেডি ১২৫ শতাংশ ডিএ অ্যানাউন্স করেছিলাম। ২০১১ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ১ কোটি ৬৬ লাখ ৬৬৫ টাকা দেওয়া হয়েছে। ১২৫ শতাংশ যখন ছিল, তখন ১ কোটি ৬৬ লাখ টাকা দেওয়া হয়েছিল। কম টাকা দেওয়া হয়নি। চার বছরের মধ্যে আমরা নয়া বেতন কমিশন গঠন করেছি। নয়া পে স্কেলের আওতায় ২০১৯ সাল থেকে রাজ্য সরকার ছয় শতাংশ ডিএ দিয়েছে। সেজন্য চার বছরে ৪১৪৪ কোটি টাকা খরচ হয়েছে।’

গতকাল ডিএ ইস্যুতে আন্দোলনরত সরকারি কর্মচারীদের নিশানা করেন মানস ভূঁইয়া। এমন পরিস্থিতিতে সংগ্রামী যৌথ মঞ্চের আহ্বায়ক ভাস্কর ঘোষ বলেন, ‘উনি বা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা হিসেব দিচ্ছেন, তাতে তো বকেয়া ৮২ শতাংশ হয়ে যাচ্ছে। আদতে বিষয়টি এই। আর উনি বলছেন বিজেপি-সিপিএম মিশে যাচ্ছে, হ্যাঁ ঠিকই বলেছে সব রং মিশে গেলে সাদাই হয়।’

এদিকে, সোমবার, সংগ্রামী যৌথ মঞ্চের আন্দোলন ৩৩৩ তম দিনে প্রবেশ করেছে। এমন পরিস্থিতিতে নতুন বছরে এই আন্দোলনের তীব্রতা আরও বাড়বে। জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহ থেকে তারা সাধারণ মানুষের দরজায় গিয়ে প্রচার অভিযান চালাবে। এরপর ১৯ জানুয়ারি কলকাতায় একটি মহাসমাবেশ হবে। হাওড়া, শিয়ালদহ ও হাজরা মোড় থেকে তিনটি মিছিল এসে শহীদ মিনারে মিলিত হবে। আর জানুয়ারির শেষে সংগ্রামী যৌথ মঞ্চের পক্ষ থেকে ধর্মঘট ডাকা হতে পারে।

এর আগে রাজ্যের মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া উত্তরবঙ্গে গিয়ে ডিএ আন্দোলনকারীদের বলেছিলেন, ‘সম্প্রতি চার সতাংশ ডিএ ঘোষণা হয়েছে। তার আগে দুই দফায় ৩ শতাংশ করে মোট ছয় শতাংশ ডিএ বাড়ানো হয়েছিল। পঞ্চম পে কমিশনের শেষ, ষষ্ঠ পে কমিশনের সূচনা পর্যন্ত ১২৫ শতাংশ যোগ করে দেওয়া হয়েছে বেসিক পে-র সাছে। আর এবার আরও ১০ শতাংশ মিলছে। মোট ১৩৫ হয়ে গেল। ২৭৭৮ কোটি টাকা আমরা দেব। আমি তাই যৌথ মঞ্চকে বলছি, মমতার পাশে দাঁড়ান।’

মানস ভূঁইয়া আরও বলেন, ‘আমার সরকারি কর্মচারীরা, এখনও অনেক জায়গায় কো-অর্ডিনেশন কমিটি ঘিরে রেখেছে, বিশেষ করে বিডিও অফিস, বিএলআরও অফিস, বিএলডি অফিস, অ্যাগ্রিকালচার অফিস। আমি নির্দেশ দিয়ে যাচ্ছি তালিকা তৈরি করুন, কারা এরা? এরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কর্মসূচিকে টেনে ধরার চেষ্টা করছে, ওই যে যৌথ মঞ্চ দেখুন আজকেও অবস্থানে বসেছে, ভাবা যায়।’ এর প্রতিক্রিয়ায়, ডিএ আন্দোলনকারীদের দাবি, সরকারের হিসাব অনুযায়ী বকেয়া ডিএ ৮২ শতাংশ।

Join Telegram groupJoin Now
Join WhatsApp ChannelJoin Now

Related Articles

Back to top button