Recruitment News

Teacher Recruitment Scam: শিক্ষক নিয়োগ তদন্তে নতুন মোড়! মিলছেনা OMR শিটের নম্বর

পশ্চিমবঙ্গের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ মামলায় নতুন মোড়। বোর্ড দ্বারা রক্ষিত নম্বর এবং আসল নম্বর গুলির মধ্যে বিরাট পার্থক্য রয়েছে।

Teacher Recruitment Scam: প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ তদন্তে নতুন মোড়! ওএমআর শিট কেলেঙ্কারিতে নম্বরের কারসাজির ঘটনা সামনে এল। প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় বড়সড় খোলাসা হতে চলেছে। মূল ওএমআর শিটের নম্বরের এবং প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ কর্তৃক রক্ষিত নম্বরের মধ্যে বিস্তর পার্থক্য রয়েছে। এমনই তথ্য পেয়েছে সিবিআই।

এস বোস কোম্পানির গ্রেফতার হওয়া দুই ব্যক্তির কাছ থেকে পাওয়া তথ্য নিয়ে মুম্বই অফিসে পৌঁছেছে সিবিআই। এখান থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। সিবিআই আধিকারিকরা মার্কগুলি বিশ্লেষণ করে দেখেছেন যে বোর্ড দ্বারা রক্ষিত নম্বর এবং আসল নম্বর গুলির মধ্যে বিরাট পার্থক্য রয়েছে। তাহলে প্রশ্ন জাগে কেউ কি এর মধ্যে নম্বর পরিবর্তন করেছে? সিবিআই আধিকারিকরা এই মামলাটি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে তদন্ত করছেন।

আগামী সপ্তাহে ওই সংস্থার কয়েকজন কর্মকর্তাকে কলকাতায় ডাকা হতে পারে। এই বিষয়ে আরও তদন্ত করবে সিবিআই। এছাড়া প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের (WBBPE) কাছ থেকেও কিছু তথ্য চাওয়া হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে বলা যায় প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলার তদন্তে সিবিআই অনেকটাই এগিয়েছে।

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের জন্য ২০১৪ সালে প্রাথমিক TET পরীক্ষা নেওয়া হয়েছিল। সেই TET পরীক্ষা সারা রাজ্যে পরিচালিত হয়। কয়েক লক্ষ চাকরি প্রার্থী টেট পাশ করে। এরপর দুই দফায় শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হলেও এ নিয়োগে নানা অভিযোগ উঠে আসে। অযোগ্য প্রার্থীদের পাস করানো হয় বলে অভিযোগ ওঠে। কলকাতা হাইকোর্টে মামলা হয়।

প্রায় ৩২ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি বাতিলের ঘোষণা দিয়েছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। পরে, শিক্ষকরা সুপ্রিম কোর্টে আপিল করলে, সুপ্রিম কোর্ট চাকরি বাতিল স্থগিত করে এবং পরে মামলাটি সুপ্রিম কোর্ট কলকাতা হাইকোর্টে রেফার করে। সুপ্রিম কোর্ট মামলার দ্রুত শুনানির নির্দেশ দিয়েছে এবং বিষয়টিকে গুরুত্বের সঙ্গে নিয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে।

Join Telegram groupJoin Now
Join WhatsApp ChannelJoin Now

Related Articles

Back to top button