News

WBSSC SLST: প্রার্থীর তুলনায় শূন্যপদ অর্ধেক, তবে কি সকলে নিয়োগ পাবেননা? দেখুন শিক্ষামন্ত্রী কী জানালেন

'প্রার্থী ৫ হাজার ৫৭৮, শূন্যপদ রয়েছে ২ হাজার ১৭৯টি’, নিয়োগ নিয়ে যা জানালেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু।

WBSSC SLST: সোমবার শিক্ষক নিয়োগে আইনি সমস্যা সমাধানে শিক্ষক পদপ্রার্থী ও রাজ্য সরকারের মধ্যে একটি সদর্থক বৈঠক অনুষ্ঠিত হল। আন্দোলনরত চাকরি প্রার্থীদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। চাকরিপ্রার্থীরা দাবি করেছেন, বৈঠকটি প্রত্যাশা মতোই হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুও আশা প্রকাশ করেছেন, নিয়োগ জট কেটে যাবে।

বর্তমানে, নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর SLST পরীক্ষার্থীদের ভবিষ্যত সুপ্রিম কোর্টের হাতে। ১৪ ডিসেম্বরের শুনানিতে, সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দেবে সরকার কর্তৃক সৃষ্ট অতিরিক্ত পদে নিয়োগ করা যাবে কি না। এর আগে, আন্দোলনের ১০০২ দিন পর সোমবার আবারও আলোচনায় বসে সরকার পক্ষ ও আন্দোলনকারী মঞ্চ। মধ্যস্থতাকারী ছিলেন কুণাল ঘোষ। শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু আশাবাদী যে আইনি জটিলতা কেটে গেলে, লোকসভা নির্বাচনের আগে নিয়োগটি ভালভাবে সম্পন্ন হবে।

বর্তমানে চাকরির অপেক্ষায় রয়েছেন ৫ হাজার ৫৭৮ জন প্রার্থী। তবে, ২০২২ সালের মে মাসে, রাজ্য মন্ত্রিসভা মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে আন্দোলনকারী শিক্ষকদের নিয়োগের জন্য ২,১৭৯ অতিরিক্ত শূন্যপদ তৈরি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা করা হয়। ওই বছরের নভেম্বরে, সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দেয় যে অতিরিক্ত পদ সৃষ্টির বিষয়ে সিবিআই তদন্ত করবে। অভিযোগ ছিল, সরকার অযোগ্যদের সুযোগ দিতেই এই পদ সৃষ্টি করেছে। এ ধরনের অতিরিক্ত পদ সৃষ্টির অধিকার সরকারের আছে কি না, তা নিয়েও একটি বিষয় রয়েছে। ফলে নিয়োগের বিষয়টি সম্পূর্ণ ঝুলে আছে।

এ বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘বাড়তি পদ সৃষ্টি কোনওভাবে আইন বহির্ভূত নয়। গোটা মন্ত্রিসভা, দুঁদে আমলারা বসে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। সুপ্রিম কোর্টের ডেট পাওয়া নিয়ে সমস্যা হচ্ছিল। আশা করা যায়, এবার জটিলতা কেটে যাবে।’ একটি মেধা তালিকা এক বছরের জন্য বৈধ। তাহলে কি এই তালিকা থেকে নিয়োগ সম্ভব? এ প্রসঙ্গে মতিউর রহমান বলেন, যেহেতু এই মামলাটি বিচারাধীন তাই এর মেয়াদকাল নিয়ে কোনো সমস্যা হবে না। এ বছরও আদালতের নির্দেশে এই তালিকা থেকে অনেক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। পরীক্ষার্থী ৫ হাজার ৫৭৮ এবং শূন্যপদ রয়েছে ২ হাজার ১৭৯টি। এখানে প্রশ্ন জাগে তাহলে সবাই কিভাবে চাকরি পাবে? এ প্রসঙ্গে ব্রাত্যবাবুর স্পষ্টীকরণ, প্রথম পদক্ষেপ হল অতিরিক্ত পদে নিয়োগের অনুমতি দেওয়া। আদালত থেকে সেটা পেলে বাকিটা কোনো সমস্যা হবে না।

Join Telegram groupJoin Now
Join WhatsApp ChannelJoin Now

Related Articles

Back to top button